মেঘনা নদীর বালু কাটা বন্ধে হাইকোর্টের স্থায়ী আদেশ

মতলব উত্তরের মেঘনা নদীর বালু কাটা বন্ধে হাইকোর্টের স্থায়ী আদেশ

স্টাফ রিপোর্টার :
চাঁদপুরের মেঘনা নদীর মতলব উত্তর অংশে ১৯টি মৌজায় বালু কাটা বন্ধে মহামান্য হাইকোর্ট নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। দীর্ঘদিন যাবত আওয়ামীলীগ নেতা কাজী মিজানুর রহমান ও গাজী মোক্তারের নেতৃত্বে একটি মহল মেঘনা নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছে।  কিন্তু বেশ কিছু দিন যাবৎ নিজেদের মধ্যে দ্বণ্ডে জড়িয়ে পরায় এই বালু মহল নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।

পরবর্তীতে আওয়ামীলীগ নেতা কাজী মিজানুর রহমান ও গাজী মোক্তারের গ্রুপের মধ্যে শুরু হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেসবুক) বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ।  এবং অনলাইন গণমাধ্যমে বালু মহলকে কেন্দ্র করে একে অপরকে ঘায়েল করে সংবাদ পরিবেশন।  এই নিয়ে স্থানীয় ভাবে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন করা হয়।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে চাঁদপুরের মতলব উত্তরে মোহনপুরের আওয়ামী লীগ নেতা কাজী মিজানুর রহমান নিজেই বাদী হয়ে অবৈধ ভাবে বালু কাটা বন্ধে মহামান্য হাইকোর্টের রিট পিটিশন জারি করেন। যার প্রেক্ষিতে মহামান্য হাইকোর্ট ২৩ জুন মেঘনা নদীর ১৯টি মৌজায় বালু উত্তোলন বন্ধে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

মেঘনা নদীর মতলব উত্তরের মৌজাগুলো হচ্ছে, জহিরাবাদ, জয়পুর, নাওভাঙ্গা, উত্তর পোয়ারচর, এখলাছপুর, হোগলা হাশিমপুর, নীলেরচর, মোহনপুর, বাহের চর, বোরচর, চর ইলিয়ট, রাম গোপালপুর, কাউয়ারচর, বাহাদুরপুর, কালীগঞ্জ দিয়ারা, চর সুগন্ধি, ষাটনল, নাসিরাকান্দি, নাপিতমারা চর।

রিট পিটিশনকারী কাজী মিজানুর রহমান সাংবাদিক সম্মেলন করে জানান, দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্প মতলব উত্তরে অবস্থিত।  এই সেচ প্রকল্পের ভাঙ্গন থেকে রক্ষার জন্য এবং মেঘনা নদীতে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধের লক্ষে চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট মো. নুরুল আমিন রুহুল মতলব উত্তরের জনগণের দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে ভূমি মন্ত্রণালয় বরাবর ডিও লেটার প্রদান করেন।  ওই ডিও লেটারের পরিপ্রেক্ষিতে ও মহামান্য হাইকোর্টে রিট আবেদনে মহামান্য হাইকোর্টের বিচারপতি জেবিএম হাসানের বেঞ্চে মতলব উত্তরের ১৯টি মৌজায় বালু কাটা বন্ধে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

হাইকোর্টে মামলা পরিচালনা করেন, সাবেক আইনমন্ত্রী ও সিনিয়র আইনজীবি ব্যারিষ্টার সফিক আহম্মেদ।  তাকে সহায়তা করেন এ্যাডভোকেট মাহবুব সফিক ও এ্যাডভোকেট মনিরুজ্জামান।

২৯ জুন সোমবার মতলব উত্তরের মোহনপুরের কাজী বাড়িতে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে উপস্থিত ছিলেন, মতলব উত্তর উপজেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি রাধেশ্যাম সাহা চান্দু, মতলব উত্তর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি দেওয়ান জহির, জেলা যুবলীগের সদস্য গাজী সাখাওয়াত হোসেন, মতলব উত্তর উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক জিএম ফারুক, মোহনপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির হাওলাদার, ফরাজীকান্দি ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি ইঞ্জিঃ রেজাউল করিম, মোহনপুর ইউনিয়ন মহিলা আ.লীগের সভাপতি মানছুরা বেগম, উপজেলা যুবলীগ সদস্য কাজী হাবিবুর রহমান, মোহনপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন জয়সহ আওয়ামীলীগের অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

Recommended For You

About the Author: Matlaber Alo

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *